বিশ্বে প্রথমবার ৪ জনের শরীরে করোনা ভ্যাকসিন প্রয়োগ

অনলাইন ডেস্ক : প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস আতঙ্কে কাঁপছে বিশ্ব। এই ভাইরাস থেকে সুরক্ষায় প্রতিটি দেশই নিজেদের মতো করে ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্বে প্রথমবারের মতো পরীক্ষামূলকভাবে ৪ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সংবাদ সংস্থা এপি জানায়, নতুন করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ থেকে রক্ষার জন্য প্রথমে ৪ জন সুস্থ মানুষের শরীরে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের এনআইএইচ ইন্ট্রাম্যুরাল রিসার্চ প্রোগ্রাম ও ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটির একটি গবেষক দল প্রথমে ৪৫ জন তরুণ ও সুস্থ স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্যে এ ভাইরাসের পরীক্ষামূলক ডোজ দিয়ে টেস্ট করবে। যেহেতু তারা সুস্থ ও নিজেদের মধ্যে এ ভাইরাস নেই এজন্য সংক্রমিত হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। বৃহৎ আকারে এ পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে দেখা হবে ভ্যাকসিনটি উদ্বেগজনক কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখায় কিনা।

এক মাসে পরীক্ষামূলকভাবে দুইটি ডোজে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে ৪৫ জনের শরীরে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের ডা. অ্যান্টনি ফৌসি বলেন, গবেষণাটি ঠিকঠাক থাকলেও ১২ থেকে ১৮ মাসের মধ্যে ভ্যাকসিনটি ব্যবহারের জন্য পাওয়া যাবে না। এর জন্য সময়ের প্রয়োজন।

এদিকে, প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলে ভ্যাকসিন নিয়েছেন জেনিফার হেলারসহ ৪ জন স্বেচ্ছাসেবক। এমআরএনএ ১২৭৩ (সজঘঅ ১২৭৩) নামের ভ্যাকসিনটি প্রথমবারের মতো দেওয়া হয়েছে জেনিফার হেলারসহ আরো তিনজনের শরীরে। ৪৩ বছর বয়সি জেনিফার পেশায় একটি প্রকৌশলী কোম্পানির ম্যানেজার। অপর দুজনের মধ্যে একজন ৪৬ বছর বয়সি প্রকৌশলী, আরেকজন ২৫ বছর বয়সি ইনডিপেনডেন্ট গ্লোবাল হেলথ রিসার্চ সেন্টারের এডিটরিয়াল কো-অর্ডিনেটর।

ভ্যাকসিন নেওয়ার পর প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ওই ৪ নাগরিক। তাদের মতে, করোনার ভ্যাকসিন অন্যান্য ফ্লু ভ্যাকসিনের মতো ব্যথা সৃষ্টি করে না।